ঘড়ি আমাদের প্রতিদিনের সঙ্গী। দৈনন্দিন জীবনে যত ভালো পোশাকেই নিজেকে সাজাই না কেন, হাতে একটি ঘড়ি না থাকলে পুরো বিষয়টা কেমন যেন অসম্পূর্ণ থেকে যায়। কিন্তু মন মতো ঘড়ি কিনতে হলে প্রয়োজন হবে প্রচুর টাকার। আমাদের দরকার কম বাজেটে সেরা ঘড়ি। তাই বিস্তারিত তথ্যসহ আমরা তিন হাজার টাকার ভেতরে জনপ্রিয় কিছু ব্র্যান্ডের ঘড়ির তালিকা করেছি। ক্রয় করার আগে চলুন, এক নজর দেখে আসি সেগুলো।

৫. লংবো

লংবো ; Image Source: www.amazon.com

আপনি কী চেইনের ঘড়ি পছন্দ করেন? আপনি কী অফিসে পরে যাবার মতো কোন ঘড়ি চাচ্ছেন যার মূল্য ২০০০ টাকা অথবা এর চেয়েও কম হবে? তাহলে আপনার জন্য রয়েছে সুখবর। লংবো নিয়ে এসেছে ২০০০ টাকার ভেতরেই চেইনের ফরমাল ঘড়ি। লংবোর চিকন চেইন ও গোলাকার ডায়াল যেকোনো ঘড়ি প্রেমীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য যথেষ্ট।

যারা ওজনে হালকা এমন ধরনের ঘড়ি পছন্দ করেন তারাও এ ঘড়িটি কিনতে পারেন। লংবোর কিছু মডেল রয়েছে যেগুলোর চেইনে দুটি রঙ থাকে , দু পাশে স্টিল ও মাঝে সোনালী রঙ। এই ধরনের চেইন দেখে বন্ড সিনেমার রোলেক্সের কথা মনে পরতে পারে। সুতরাং চিকন চেইনের মধ্যে ফরমাল ঘড়ি পছন্দ ও বাজেট ২০০০ হলে লংবো হতে পারে আপনার সেরা সিদ্ধান্ত।   

৪. হেলেই

হেলেই ঘড়ি; Image Source: daraz.com.

খুবই সাদামাটা নকশার মাঝে চেইনের ঘড়ি কিনতে চাইলে আপনি হেলেইয়ের দিকে তাকাতে পারেন। হেলেইয়ের সব থেকে জনপ্রিয় ঘড়িতে স্টিলের চেইনের মধ্যে গোলাকার ডায়াল থাকে। ডায়ালের আকার বেশ বড় নয় এবং এর ভেতরের অংশ কালো। ঘড়িটির ঘণ্টার কাটা বারো, তিন, ছয় এবং নয়ে পাথর বসানো থাকে। তবে সে পাথর স্বর্ণের বা হীরার নয়। অবশিষ্ট ঘণ্টার কাটাগুলো শুধু দাগ দেয়া থাকে। সেখানে কোন প্রকার নম্বর বসানো থাকে না।

হেলির ঘড়ি নারী ও পুরুষ উভয়ের জন্যেই মানানসই। পাতলা চেইনের মধ্যে কোনো ঘড়ি কিনতে চাইলে আপনি হেলেইকে নিজের তালিকায় রাখতে পারেন। হেলেইয়ের মূল্য একেক জায়গায় একেক রকম। তবে এক হাজার থেকে শুরু করে পনেরশ টাকার মধ্যে এটি আপনি পেতে পারেন।  

৩. কারেন

কারেন ঘড়ি; Image Source: daraz.com.

হেলেই  বা লংবোয়ের প্রায় ঘড়িসমূহে আপনি একটা বিষয় লক্ষ্য করে থাকবেন। সেটি হলো, এই ঘড়িগুলোতে তারিখ প্রদর্শনের জন্য পৃথক কোন স্থান নেই। কারেনের প্রায় সব ঘড়িগুলোতে এই সুবিধাটি রয়েছে। বিশেষ করে কারেনের সবচেয়ে বিখ্যাত ও বহুল ব্যবহৃত যেসকল মডেল রয়েছে সেগুলোতে তারিখের জন্য আলাদা ঘর বাঞ্ছনীয়।

কারেনের সব থেকে দৃষ্টিনন্দন দিক হলো এর চেইন ও ডায়ালের রঙ। অনেকগুলো চেইনের খন্ড পরস্পরের সাথে যুক্ত হয়ে সম্পূর্ণ চেইন তৈরি করা হয়। চেইনের রঙ গাঢ় কালো তবে এটি চকচকে কালো নয়, মনে হবে  চেইনের উপর আলতো করে কালো রঙ মিশে গিয়েছে। এটিকে বলা হয় ‘মেট ব্ল্যাক’।

ঘড়িটির ডায়াল অন্যান্য ঘড়ির মতো শক্ত, মোটা তবে আকারে বড় নয়। যেকোনো হাতে মানাবে এমন ভাবেই তৈরি করা হয়েছে, তবে যাদের কব্জি ছোট তাদের হাতের জন্য এই ঘড়িটি উত্তম। ঘড়িটির বাজার মূল্য এক হাজার থেকে আঠারোশত টাকা।     

২. নিবোসি

নিবোসি ঘড়ি; Image Source: dhgate.com

ঘড়ির জগতে নিজেদের নতুন রাজ্য তৈরি করতে চেষ্টা করছে এই ব্র্যান্ডটি। তাদের সোনালি রঙের চেইন ও কালো, নীল ও সাদা রঙের ডায়াল যেকোনো ক্রেতাকেই আকৃষ্ট করতে সক্ষম। যারা ঘড়ি পরতে পছন্দ করেন এবং ঘড়ি সংগ্রহ করতে ভালোবাসেন, তাদের কাছে ক্রোনোগ্রাফ ঘড়ি অবশ্যই অনেক প্রিয়।

নিবোসি অন্যান্য ব্র্যান্ডের তুলনায় বেশ স্বল্প মূল্যে দিবে এই ক্রোনোগ্রাফ সুবিধা সম্পন্ন ঘড়ি। সাধারণত যেকোনো নাম করা ঘড়ির ব্র্যান্ডগুলোর ক্রোনগ্রাফ সমূহের দাম প্রচুর, দশ হাজার থেকে লক্ষ টাকার বেশিও হয়। ঘড়িটির মাঝে আপনি এক সাথে অনেক কিছু পাবেন। যেমন, ঘড়ির ডায়ালের ডান অংশে তারিখের একটি ঘর করা থাকবে। তারিখের ঘরটি একটু বাঁকানো এবং এটিতে নম্বরগুলো বসানো থাকবে। নম্বরগুলোর ডান পাশে থাকবে একটি তীর চিহ্ন। এই তীর চিহ্নটি তারিখের ঘরের ভিতরে থাকা নম্বর বরাবর মুখ করে থাকে। যেই নম্বরের দিকে তীরটি থাকবে সেটিই হবে ঐ দিনের তারিখ।

ক্রোনোগ্রাফ বলেই এখানে ঘণ্টা, মিনিট ও সেকেন্ডের জন্যে পৃথক তিনটি গোলাকার ঘর করা থাকে। ডায়ালের উপরের দিকে সেকেন্ডের ঘর, বাম পাশে মিনিট ও নিচে ঘণ্টার ঘর থাকে। ঘড়িটি একই সাথে ক্রোনোগ্রাফ ও এনালগ ধরনের। ঘণ্টা ও মিনিটের আলাদা ঘর থাকা সত্ত্বেও আরো দুটি কাটা রয়েছে যেগুলো পুরো ডায়াল জুড়েই বিস্তৃত। ডায়ালের পুরো গোলাকার অংশ জুড়ে মিনিটের দাগ কাঁটা এবং বারো, তিন, ছয় ও নয়ের দিকে দাগগুলো অন্যান্য কাটাগুলোর থেকে অধিকতর স্পষ্ট।

ঘড়িগুলো জল-নিরোধী ক্ষমতা সম্পন্ন, বৃষ্টির পানিতে কোন ক্ষতি হবে না। তাছাড়া, চেইন বেশ টেকসই, ঘষা লাগলে সহজেই আচড় পরে না। চেইনের রঙ বছরের পর বছর ধরে অটুট থাকবে। মাত্র তিন হাজার টাকা খরচ করলেই আপনার হাতে চলে আসবে নিবোসি।

১। নেভি ফোরস

নেভি ফোরস ব্লু ডেভিল; Image Source: daraz.com

যাদের ভারী ও বড় ডায়ালের ঘড়ি পছন্দ তাদের জন্যে নেভি ফোরস থেকে সেরা আর কোন ঘড়ি হতে পারে না। ঘড়িটি বেল্ট ও চেইন দুই ধরনের মধ্যেই বাজারে পাওয়া যায়। এটি জল-নিরোধী ক্ষমতা সম্পন্ন যার সাথে পাচ্ছেন এক বছরের ওয়ারেন্টি। এর মূল্য দুই হাজার টাকা থেকে শুরু করে তিন হাজার টাকার মতো।

ফিচার ছবি- naviforce.com

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *