বর্তমানে মানুষের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই পূর্বের যা বিলাসবহুল পণ্যসমূহ ছিল এখন সেসব নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসে পরিণত হচ্ছে। যেমন মোবাইল ফোন, স্মার্ট ঘড়ি এবং ল্যাপটপ। ল্যাপটপ এখন কেবল চাকুরীজীবীদের জন্যই নয়, এটি এখন ছাত্রছাত্রীদের জন্যও বেশ গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। কেউ গেইম খেলতে পচ্ছন্দ করে যার জন্য দরকার উঁচু মানের ল্যাপটপ। আবার কারো দরকার একাডেমিক কাজে ব্যবহার করার জন্য, কেউ আবার ফটোশপ এবং ডিজাইনিং এর জন্য ব্যবহার করে। মোট কথা ল্যাপটপ ক্রয় করা এখন বিলাসিতা না বরং সময়ের দাবি।

তবে এখানে ব্যয়বহুল ৫ টি ল্যাপটপের তালিকা আপনাদের জন্য দেয়া হয়েছে। যারা ভালো গ্রাফিক্স, উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ল্যাপটপ ব্যবহার করতে ইচ্ছুক, যারা গেইম খেলতে ইচ্ছুক এবং গেইম এর জন্য অর্থ খরচ করতেও দ্বিধা বোধ করেন না, এই লেখাটি তাদের জন্যই। ক্রেতা তার পছন্দ ও বাজেট মোতাবেক ল্যাপটপ সম্পর্কে এখান থেকে ধারণা নিয়ে ক্রয় করতে পারবেন। 

১. ডেল এক্সপিএস ১৩

সিপিইউ: অষ্টম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই ৫ – কোর আই ৭। গ্রাফিক্স: ইনটেল ইউএইচডি গ্রাফিক্স ৬২০, র‌্যাম: ৪ জিবি- ১৬ জিবি। স্ক্রিন: ১৩.৩-ইঞ্চি এফএইচডি (১৯২০ x ১০৮০) – ৪ কে (৩৮৪০ x২১৬০)।  স্টোরেজ: ২৫৬ জিবি টিবি এসএসডি।

এর ওয়েবক্যাম মাঝ বরাবর, ব্যাটারি জীবন বেশ ভালো। তাছাড়া ফোর কে ডিসপ্লে আরেকটি আকর্ষণীয় ফিচার। ২০১৯ সালের নতুন সংস্করণটি আকারে বড় তবে ব্যয়বহুল নয়। “ডেল এক্সপিএস ১৩” বছরের পর বছর  ধরে আমাদের সেরা ল্যাপটপের তালিকার একটি নিয়মিত সদস্য। ২০১৯ সালের এই মডেলটিও এর ব্যতিক্রম নয়।

ডেল ফ্ল্যাগশিপের ১৩-ইঞ্চির এই মডেলটি বেশ চমৎকারভাবে নকশা করা হয়েছে। “ডেল এক্সপিএস ১৩” এ ৮ম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই-৫ থেকে কোর আই-৭ প্রসেসর এবং একটি বেজেল-কম ‘ইনফিনিটি এজ’ ডিসপ্লে রয়েছে। এই “ডেল এক্সপিএস ১৩” সর্বাধিক জনপ্রিয় উইন্ডোজ ল্যাপটপ হিসেবে বিশ্বব্যাপী গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করতে পেরেছে। এর মূল্য ১ লাখ ৩৬ হাজার টাকা।

২. হুয়াওয়ে ম্যাটবুক ১৩

Image Source: pocket-lint.com

                         
সিপিইউ: অষ্টম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই-৫, আই-৭। গ্রাফিক্স: ইনটেল ইউএইচডি গ্রাফিকস ৬২০, এনভিডিয়া জিফর্স এমএক্স ১৫০, ২ জিবি জিডিডিআর-৫। র‌্যাম: ৪ জিবি, স্ক্রিন: ১৩-ইঞ্চি ১৪৪০p (২১৬০ x ১৪৪০)। স্টোরেজ: ২৫৬ জিবি – ৫১২ জিবি এসএসডি।

হুওয়ায়ের অন্যতম সেরা ল্যাপটপ বললে ভুল হবে। এর গ্রাফিক্স ক্ষমতা, মেমোরি, ভালো কার্যক্ষমতা সম্পন্ন। বাহিরের দিক থেকেওঁ দেখলে ল্যাপটপটি খুব সুন্দর। ল্যাপটপটির বেধ পাতলা। এর বাজার মূল্য ৯৭ হাজার ৫ শত টাকা।

৩. এইচপি স্পেকটার এক্স ৩৬০ (২০১৯)

সেরা একের ভেতর দুই নিয়ে  উপস্থিত হয়েছে এইচপি স্পেক্টার এক্স ৩৬০ ল্যাপটপটি। এর সিপিইউ: ইন্টেল কোর আই-৫ ও কোর আই-৭। গ্রাফিক্স: ইনটেল ইউএইচডি গ্রাফিক্স ৬২০, র‌্যাম: ৪ জিবি ও ১৬ জিবি। স্ক্রিন: ১৩.৩-ইঞ্চি এবং পূর্ণ এইচডি (১৯২০ x ১০৮০) – ইউএইচডি (৩৮৪০ x ২১৬০) টাচস্ক্রিন। স্টোরেজ: ২৫৬ জিবি থেকে ২ টিবি পিসিআই এসএসডি।

সর্বাধুনিক প্রযুক্তিতে নির্মিত, শক্তিশালী এবং ব্যয়বহুল এইচপি আল্ট্রাবুক এবং এইচপি স্পেক্টর লাইনের একের ভেতর দুই ল্যাপটপগুলো সর্বদা আকর্ষণীয় ডিভাইসের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। এটি এই মুহূর্তে বাজারের অন্যতম সুন্দর ল্যাপটপ, এর মণি কাটা নকশা ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে যথেষ্ট।  ইন্টেল ভিস্কি লেক প্রসেসর এবং দীর্ঘ ব্যাটারি লাইফ ল্যাপটপটিকে দিচ্ছে দারুন কার্যক্ষমতা। আপনি এই ল্যাপটপটিকে বাজারে অন্যসব সেরা ল্যাপ্টপগুলোর তালিকায় রাখতে পারেন। এর বর্তমান মূল্য ১ লাখ ১৩ হাজার টাকা।

৪. ম্যাকবুক প্রো ২০১৮, টাচ বার ১৩ ইঞ্চি

Image Source: pcmag.com

সিপিইউ: কোয়াড-কোর ইন্টেল কোর আই-৫ ও কোর আই-৭, গ্রাফিক্স: ইন্টেল আইরিস প্লাস গ্রাফিকস ৬৫৫। র‌্যাম: ৪ জিবি থেকে শুরু করে ১৬ জিবি পর্যন্ত, স্ক্রিন: ১৩.৩-ইঞ্চি, (২৫৬০ x ১৬০০) আইপিএস। স্টোরেজ: ১২৮ জিবি থেকে ২ টিবি পিসিআই ৩.০ এসএসডি।

যারা ম্যাকবুক ব্যবহার করে অভ্যস্থ এবং অ্যাপল ভক্ত তাদের জন্যে এই পণ্যটি সেরা। অ্যাপলের এযাবতকালের সবচেয়ে আলোচিত ল্যাপটপ এটি। এর মূল্য ১ লাখ ৫০ হাজার টাকার মত হবে।

৫. আসুস আরওজি জেফেরিস এস জিএক্স ৭০১

2019 এর সেরা গেমিং ল্যাপটপ এটি। সিপিইউ: ইন্টেল কোর আই ৭-৮৭৫০ এইচ। গ্রাফিক্স: এনভিডিয়া জিফোর্স আরটিএক্স ২০১৮ (৪ জিবি জিডিডিআর ৬ ভিআরএম, সর্বাধিক-কিউ), র‌্যাম: ২৪ জিবি। স্ক্রিন: ১৭.৩-ইঞ্চি এফএইচডি (১৯২০ x ১০৮০) ১৪৪ হার্জ প্যানেল ও স্টোরেজ: ১ টিবি এম ২ এসএসডি।

Image Source: pcmag.com

চমৎকার কাজ, উজ্জ্বল রঙ, অসাধারণ নকশা এবং সেই সাথে অত্যন্ত ব্যয়বহুল এই গেমিং ল্যাপটপ যা ব্যবহার করলে গেমিং এর ক্ষেত্রে আপনার অভিজ্ঞতা বদলে যাবে। উয়িচার ৩, গড অফ ওয়ারের মত গেইম অনায়াসে খেলতে পারবেন। কোথাও কোন ভাবে আটকাবে না। এর শক্তিশালী উপাদান গুলো এই ল্যাপটপটিকে বাজারে অন্যসব ল্যাপটপের তুলনায় এগিয়ে রাখে। শুধু গেইম খেলার জন্যেই না এই ল্যাপটপে যাবতীয় জটিল ও খুব বড় যায়গা দখল করে এমন সব সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাবে। এটি এখনো বাংলাদেশে আসে নি তবে এর বাজার মূল্য ৩লাখ ৩০ হাজার টাকা বা এরও উপরে হতে পারে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *