অ্যালেক্সার সৌজন্যে অ্যামাজন এবছর যতগুলো ডিভাইস বাজারে ছেড়েছে তাতে বোঝাই যায় অ্যামাজনের ঝোঁক এখন ইকো ডিভাইসে। শত শত ইকো ডিভাইসের মাঝে অ্যামাজন তাদের ইকো স্মার্ট স্পিকারকে অবশ্যই ভুলে যায়নি, যার মাধ্যমে এই যাত্রার শুরু।

অ্যামাজন বাজারে নিয়ে এলো ইকো স্পিকারেরথার্ড জেনারেশন;Image Source: www.engadget.com

ইকো স্মার্ট স্পিকারই প্রথম আমাদের বিশ্বাস করিয়েছিলো ভয়েস কমান্ডে কাজ হওয়ার বিষয়টি কোনো ভেল্কিবাজি নয়। এর থার্ড জেনারেশনে এসে ৯৯ ডলারের ইকো স্পিকার এতই ভালো পারফরমেন্স দিচ্ছে যে এর বহুমূল্য সহোদরদের একেবারেই লাইমলাইটের বাইরে নিয়ে ফেলছে। তো কি কি আপগ্রেডেড সুবিধা পাওয়া যাবে অ্যামাজন ইকো-২০১৯ এ জেনে নিই চলুন।

স্পিকারের নতুনত্ব

আগের মডেলের তুলনায় ইকোর স্পিকারে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে যার কারণে স্পিকারের সাউন্ড কোয়ালিটি ও পারফরমেন্স হয় উঠেছে দারুণ। আগের মডেলগুলোর অডিও খুবই ম্লান শোনা যেতো। এমনকি মাত্র ২.৫ ইঞ্চির উফারযুক্ত ইকো প্লাসের থেকেও নতুন এই স্পিকারের সাউন্ড ভালো কোয়ালিটির।

ইকো স্মার্ট স্পিকারে এখন ডলবি অডিও প্রসেসিংও সংযোজিত করা হয়েছে। তবে এত ছোট স্পিকারে ডলবির এই ফিচার কতটুকু পার্থক্য আনবে ঠিক বলা যাচ্ছেনা। ব্যবহারকারীরা বলছেন, ইকোর নতুন স্পিকারের বাস পারফরমেন্স বিশেষ করে খুবই ভালো। পডকাস্ট ও ডিজিটাল রেডিও স্ট্রিমিং ও এই স্পিকারে দারুণ শোনা যায় এমনটাও মন্তব্য করেছেন অনেক ব্যবহারকারী।

ইকো স্পিকারের পুরোন ও নতুন মডেল;Image Source: www.engadget.com

মাইক্রোফোনে পরিবর্তন

ইকো স্পিকারের মাইক্রোফোন ফ্রন্টে কোনো পরিবর্তন এসেছে কিনা সে সম্পর্কে অ্যামাজন কিছু উল্লেখ না করলেও ব্যবহারকারীরা বলছেন এটি আগের মডেল এবং ইকো প্লাসের মতই পারফর্ম করছে। ১২ ফিট দূর থেকে আপনি স্বাভাবিক কন্ঠে অ্যালেক্সা বলে ডাকলেও এটি আপনার কমান্ড শুনতে পাবে।

নতুন ইকো স্পিকার অনেক জটিল কমান্ড ও সহজে ধরতে পারে। কিন্তু তারপরও অনেক সময় আপনাকে কমান্ড পুনরায় বলতে হতে পারে বিশেষ করে ব্যাকগ্রাউন্ডে যদি টিভি চলে বা অন্য কোনো শব্দের আধিক্য থাকে।

ভয়েস ডিটেকশন

অরিজিনাল ইকোর “ধরতে পারলে ধরলো না হলে মিস” এরকম ভয়েস ডিটেকশন সীমাবসদ্ধতা থেকে অ্যামাজন ডিভাইসগুলো অনেক পথ অতিক্রম করে এসেছে। যদিও ভয়েস কমান্ডের প্রতি অরিজিনাল ইকোও যথেষ্ট আজ্ঞাবাহী ছিল। চিৎকার করে কোনো গান বাজাতে বলা, রেডিও স্টেশন ধরতে বলা বা নিছক কোনো প্রশ্নের উত্তর খোঁজায়ও ব্যবহারকারীদের দিয়েছে সাইফাই মুভির সুপার কম্পিউটার ব্যবহারের অনুভূতি।

ইকোর প্রো মডেলের স্মার্ট ফিচারগুলো না থাকলেও এই স্পিকারে তা খুব একটা পার্থক্য আনেনি। তুলনামূলক দামী মডেল কেনার একমাত্র লাভজনক দিক ছিলো এর অডিও কোয়ালিটি। নতুন মডেলে যেহেতু আরো কম দামেই ভালো অডিও কোয়ালিটি পাওয়া যাচ্ছে, সেহেতু প্রো মডেলের চাহিদা আরো কমে যাবে।

প্রাইভেসি

মাইক্রোফোনের কনফিগারেশনে পরিবর্তন তেমন না এলেও বাড়ানো হয়েছে সাউন্ড কোয়ালিটি; Image Source: www.engadget.com

প্রাইভেসি সচেতন ব্যবহারকারীদের কথা মাথায় রেখে অ্যামাজন ইকো তাদের প্রাইভেসি রক্ষার চেষ্টাও আরও বাড়িয়েছে নতুন ডিভাইসগুলোয়। বিশেষ করে ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্টের দক্ষতা বাড়াতে ও যাচাই করতে অ্যামাজনের কর্মীরা ভব্যবহারকারীদের ভয়েস রেকর্ড শুনছে এমন অভিযোগ আসায় কোম্পানী এ বিষয়ে সতর্ক হয়েছে।

এখন একজন ব্যবহারকারী চাইলেই পুরো রিভিউ প্রক্রিয়াটিই বাদ দিতে পারেন। যদিও এটাকে অ্যামাজনের একার আদর্শিক প্রচেষ্টা বলা যায়না, যেহেতু গুগল ও এপল ও একইরকম তৎপরতার জন্য সমালোচিত হয়েছিলো। অন্ততপক্ষে কোম্পানি ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা রক্ষার প্রতি সতর্ক আছে এটুকু স্বস্তির। যেহেতু সব স্মার্ট স্পিকারই আসলে ক্লাউডে সংযুক্ত অনেকগুলো মাইক্রোফোনের মাধ্যমে, তাই এরকম একটি স্পিকার ঘরে এনে রাখবেন কিনা তা আগেই ভেবে নিন।

গোপনীয়তার ব্যাপারে সচেতন ব্যবহারকারীদের জন্য স্ট্যান্ড অ্যালোন ব্লুটুথ স্পিকার বা সোনোস এর মত স্মার্ট ওয়্যারলেস সিস্টেম হতে পারে বেশ উপযোগী।

স্মার্ট স্পিকারে যাত্রা শুরু

অ্যালেক্সার অন্যান্য স্মার্ট হোম পণ্যগুলো দিয়েও শুরু করতে পারেন ভয়েস এসিস্টেন্স যাত্রা; Image Source: www.engadget.com

অ্যালেক্সার সাথে আপনার পথচলা শুরুর জন্য আছে অনেক ডিভাইস। যেমন ৬০ ডলারের ইকো ডট, ৩০ ডলারের ইকো গ্লো নাইটলাইট বা ২৫ ডলারের ছোট্ট ইকোফ্লেক্স। এর যেকোনোটিই আপনাকে অ্যামাজন ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্সের স্বাদ দিবে। কিন্তু আপনি যদি ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্সের পাশাপাশি এমন কোনো ডিভাইস চান যা গান বা মিউজিক শোনাবে তবে বেছে নিতে পারেন অ্যামাজন ইকো স্পিকার।

আরো ভালো সাউন্ড কোয়ালিটি পেতে চাইলে এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন ইকো স্টুডিও বা সোনোস ওয়ান। আবার ইকো শোস রয়েছে তাদের জন্য যারা ইনফরমেশন শোনার পাশাপাশি দেখতেও চান। আপনি যদি হেভি এন্ড্রয়েড ইউজার হন বা সব সময় গুগলে ডুবে থাকেন, তবে গুগল ইকোসিস্টেমের যেকোনো স্মার্টহোম ডিভাইস আপনার জন্য হবে বেশি উপযোগী।

অন্যদিকে অ্যালেক্সা আপনার জন্য বেশি উপযোগী হবে যদি আপনি গুগলের তেমন কোনো সেবা ব্যবহার না করেন এবং থার্ডপার্টি ডিভাইস ও সেবা পেতে বেশি আগ্রহী হয় থাকেন।

অ্যালেক্সার জগতে প্রবেশের ক্ষেত্রে থার্ড জেনারেশন ইকো স্পিকারে তেমন কোনো খুঁতই খুজে পাওয়া যাবেনা। তুলনামূলকভাবে এই স্পিকারের দাম কম, সাউন্ড কোয়ালিটি অসাধারণ আর জাদুর মতো ভয়েস কমান্ড গ্রহণ করতে পারে। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী অ্যামাজন একটু সময় নিলেও একশ ডলারের সীমার মধ্যে ভালো মানের স্মার্ট স্পিকার তারা বাজারে আনতে অবশেষে সক্ষম হয়েছে এই চলতি সংস্করণের মধ্য দিয়ে।

ফিচার ছবি- techreader.com

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *