শাওমি ফোনের নাম শোনেননি এমন মানুষ আছে? বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল ফোনের ব্র্যান্ডই যে শাওমি। শাওমি ফোনগুলো এখন আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপে লভ্য। ব্র্যান্ডটি এর অভূতপূর্ব সুলভ মূল্যের জন্য বিশ্বজুড়ে সুপরিচিত হয়ে উঠছে। চীনা এই কোম্পানিটি এর কোনো হার্ডওয়্যারের উপরই 5% এর বেশি লাভের আশা করে না। ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের ব্যবহারকারীদের জন্য শাওমি আপনাকে একই মূল্যে কয়েকটি বিশেষ সুবিধাসহ মোবাইল ফোন সরবরাহ করে। আপনি যদি সেরা ফোনটি সর্বোচ্চ সুলভ মূল্যে কিনতে চান, তবে শাওমির চেয়ে উত্তম আর কী হতে পারে?

শাওমির মালিকানার ধারা প্রায়শই পরিবর্তিত হওয়ার কারণে এটি সমালোচিত হয়। এই বছরের শুরুর দিকে শাওমি তার বাজেট রেডমি ব্র্যান্ডটি সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যা এখন প্রাক্তন-জিওনির প্রেসিডেন্ট উ লে লাইবিংয়ের নেতৃত্বে রয়েছে। জানুয়ারিতে এটি তার প্রথম ডিভাইস, রেডমি নোট ঘোষণা করেছিল, যাতে একটি চমকপ্রদ ৪৮ এমপি ক্যামেরা এবং উচ্চ-ক্ষমতাসম্পন্ন ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি থাকবে বলে বলা হয়েছিল। এটি এর পরে রেডমি নোট 7 প্রো এবং রেডমি 7 ঘোষণা করেছে এবং প্রো ব্যতীত অন্যরা সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে যাত্রা করেছে।

এ বছরের শেষের দিকে আমরা একটি রেডমি ফোন দেখতে পাব যাতে একটি ৬৪ এমপি ক্যামেরা দেয়া হবে। শাওমি  ফোনগুলোর একটি বিরাট বাজার আছে এবং শাওমি  ব্র্যান্ডের অধীনে বিক্রি হওয়া অনেকগুলো স্বতন্ত্র সংস্থাগুলোর সাথেও শাওমি ফোনগুলোর একটি বিশাল যোগাযোগ আছে বলে মনে হয়। তাই যখন রেডমি বর্তমানে বাজেটের সমার্থক, মূল শাওমি (বা এমআই) ধারায় মানুষের কাছে বেশ কয়েকটি ফ্ল্যাগশিপ মডেল রয়েছে। উভয় ব্র্যান্ডের মধ্যেই স্বল্প বাজেটের মডেল রয়েছে। শাওমি ধারার ঠিক উপরে এমআই ৯ যা এমডব্লিউসি-তে ফেব্রুয়ারিতে ঘোষণা করা হয়েছিল। যুক্তরাজ্যে এটির৬ জিবি র‌্যামের জন্য ৪৯৯ ডলার, ৬৪ জিবি স্টোরেজ মডেল এবং ১২৮ গিগাবাইট স্টোরেজ সহ  ৫৪৯ ডলার ব্যয় করে কেনা যাবে। পরবর্তী সময় থেকে থেকে এটি সস্তা, এমআই ৯ এসই নামের একটি নতুন ধারা যুক্ত হয়েছে, যা ৩৪৯ ডলার থেকে শুরু হয়।
তিনটি সেরা শাওমি ফোনের তালিকা দেখে নেয়া যাক চলুন।

১. শাওমি মি ৯

Image Source: amazon.com

                                  

ফিচারসমূহ:

এর ডিসপ্লেটি এইচডিআর ৬.৩৯ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলেড রেজোলিউশন যার পিপিআই: ২৩৪০/১০৮০। তাছাড়া ‘৪০৩ বায়োমেট্রিক্স: ইন-ডিসপ্লে’, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সিপিইউ: স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ (দ্রুততম), র‌্যাম: ৬ জিবি স্টোরেজ: ১২৮ জিবি, হেডফোন জ্যাক: (টাইপ-সি অ্যাডাপ্টার অন্তর্ভুক্ত), ব্যাটারি: ৩৩০০ এমএএইচ ডিজাইন: গ্লাস স্যান্ডউইচ এবং ওজন ১৭৩ গ্রাম।

ওয়ানপ্লাস ফোনগুলো আগে যা ছিল তা আপনি শাওমি এমআই ৯ ভাবতে পারেন; শক্তিশালী, আড়ম্বরপূর্ণ এবং সাশ্রয়ী মূল্যের। ওপি ৭ প্রোটির দাম ৭০০ মার্কিন ডলারের কাছাকাছি, শাওমি এমআই ৯ দেখতে খুবই আকর্ষণীয় দেখায়।

শাওমি এমআই ৯ কী কী সুবিধা দিতে পারে ?

৪৮ মেগা পিক্সেলের এর প্রশস্ত কোণ রিয়ার ক্যামেরাটি বেশ ভালো মানের। মি ৯ এর তিনটি ক্যামেরা (অ্যামাজন) একটিমাত্র সেটআপে সনির বিশেষজ্ঞদের দ্বারা তৈরি একটি অসাধারণ ক্যামেরা রয়েছে। আপনি অবিশ্বাস্য পরিমাণের ক্যাপচারের প্রত্যাশা করতে পারেন এই ক্যামেরা থেকে, যার সাথে পাবেন অসাধারণ জুম ইন এবং জুম আউট। তাছাড়া বর্তমানে এর ডিসপ্লে AMOLED, যা সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত এবং এইচডিআর সমর্থনও অন্তর্ভুক্ত। আগ্রহীরা জেনে খুশি হবেন যে, এই চমৎকার এবং মানসম্মত ডিসপ্লেটি গরিলা গ্লাস ৬ দ্বারা সুরক্ষিত।

 

সবশেষে, এটি ৬ গিগাবাইট র‌্যাম এবং ১২৮ জিবি স্টোরেজের সাথে মিলিত দ্রুততম কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন 855 চিপ ব্যবহার করছে। আপনি অন্যান্য হাই-এন্ড বৈশিষ্ট্যগুলো যেমন এনএফসি, ব্লুটুথ ৫.0, এসি ওয়াইফাই এবং কোয়ালকমের কুইক চার্জ ৪.০ পেতে পারেন এর মাঝে।

 

২. শাওমি এমআই ৯ টি প্রো

Image Source: gadgetaffair.com

২০১৯ সালে চলছে পপআপ সেলফি ক্যামেরার রাজত্ব। শাওমি ব্র্যান্ডে যারা নতুন, তাদের জন্য, এটি এমআই ৯ এর গড় ৩৩০০ এমএএইচ ব্যাটারি সংস্করণ করে থাকলেও, বর্তমানে এটি আরো বাড়িয়ে ৪০০০ এমএএইচে উন্নীত করেছে, যা বাড়িয়েছে এর দীর্ঘস্থায়ীত্ব। এতে একটি ২০ এমপি পপআপ সেলফি ক্যামেরা যুক্ত। এটি ৩.৫ মিমি হেডফোন জ্যাকটি ফিরিয়ে এনেছে। সেই সাথে ৬.৩৯ ইঞ্চি সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে, স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ পারফরম্যান্স এবং সর্বাধুনিক ৪৮ মেগা পিক্সেলের তিনটি ক্যামেরা এই ব্যবস্থাটিকে দুর্দান্ত করেছে। আর এর ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স তো একে করেছে অনন্য।

৩. শাওমি মি মিক্স 3 (5 জি)

 Image Source: www.androidpit.com

শাওমি ব্র্যান্ডের আরেকটি জনপ্রিয় ফোন শাওমি মি মিক্স ৩। এতে ৪৩০ নিট উজ্জ্বলতা এবং এইচডিআর সমর্থিত ৬.৩৯ ইঞ্চির চমৎকার স্যামসাং অ্যামোলেড ডিসপ্লে রয়েছে। এটি সম্পূর্ণ ফোনের আকারের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণভাবে চমত্কার ৯৩.৪%  স্ক্রিন-টু-বডি-আনুপাত দিয়ে থাকে। অল-ডিসপ্লে প্রদর্শনের প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে এটি অন্যান্য ফোনের তুলনায় বেশ সফলতার সাথে এগিয়ে রয়েছে। মি মিক্স 3 (৫জি) ফোনের ২০১৯ সালের ফ্ল্যাগশিপে  স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ প্রসেসরের বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা একে অতি-দ্রুত ৫ জি নেটওয়ার্ক সমর্থন করতে সক্ষম করে।

 

গত কয়েক বছর ধরেই শাওমি ব্র্যান্ডটি হুয়াওয়ে, ওপ্পো আর ওয়ানপ্লাসের মতো অন্যান্য বিখ্যাত চীনা কোম্পানিগুলোর সাথে শক্ত প্রতিযোগীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। চীনা আমদানি পণ্য হিসেবে অন্যান্য পণ্যের সাথে একই সমতলে দাঁড়িয়ে আছে এই শাওমি ফোনসমুহ, যা ভারতীয় উপমহাদেশের বাজারও বেশ সফলতার সাথে মাতিয়ে রেখেছে। এর প্রমাণ আমরা ঘরে ঘরে শাওমির কোনো না কোনো ফোনের উপস্থিতি থাকার মধ্যেই পাই।

 


Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *